ঘরের খাবার প্রিয়াংকার পছন্দ

0
16

ঢাকা , ১৪ আগস্ট, (ডেইলি টাইমস২৪): বলিউড ছাড়িয়ে এখন হলিউডও কাঁপাচ্ছেন প্রিয়াংকা চোপড়া।সাবেক বিশ্ব সুন্দরী প্রিয়াংকা কী করে ৩৫ বছর বয়সেও নিজেকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলছেন, তা বুঝতে হলে চোখ রাখতে হবে তার খাদ্যভ্যাস ও ব্যায়ামের উপর।

প্রিয়াংকার খাদ্যাভ্যাস

প্রিয়াংকা অকপটেই শিকার করেন খাবারের প্রতি তার অপরিসীম ভালোবাসার কথা। আর খুব ভালো পরিপাক হার থাকায় ফ্যাটজাতীয় খাবার খেলেও তা সহজেই শরীরে জমা হয় না তার। ঘরে তৈরি যে কোনো খাবারই তার পছন্দের। বিশেষ করে মাখন লাগানো পরোটা রয়েছে তার পছন্দের খাবারের তালিকার শীর্ষে। পছন্দের অন্যান্য খাবারের মধ্যে রয়েছে খাসির বিরিয়ানী, মাছের তরকারি ও কার্ড রাইচ।

ভারতীয় খাবারের পরপরই তার পছন্দ হল ইতালীয় খাবার। এছাড়া ডেজার্ট, রেড ভেলভেট কেক, হট চকলেট ফাজ ও জিলাপির প্রতি রয়েছে প্রিয়াংকার বিশেষ দুর্বলতা।

তবে ভোজন রসিক এ অভিনেত্রীর রান্নার প্রতি কোনো আগ্রহ নেই; এমনকি এক কাপ চাও ঠিক মতো বানাতে পারেন না বলেও এক সাক্ষাতকারে জানিয়েছেন তিনি।

খাবারের প্রতি যথেষ্ট আগ্রহ থাকলেও সুস্থ থাকতে ও নিজের শরীর ঠিক রাখতে সঠিক ও স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস মেনে চলেন প্রিয়াংকা। তৈলাক্ত খাবারদাবার সবসময় এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেন তিনি। তার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় থাকে প্রচুর সবজি ও তাজা ফল মূল। পরিপাক হার ও এনার্জি লেভেল ঠিক রাখতে এবং অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ এড়াতে প্রতি দুই থেকে তিন ঘণ্টা পরপর খাবার খান তিনি।

ডিমের সাদা অংশ অথবা ওটস ও এক গ্লাস ফ্যাট ফ্রি মিল্ক খেয়ে দিন শুরু করেন তিনি। তার দুপুরের খাবারে থাকে সাধারণত চাপাতি, ভাত, ডাল, সালাদ ও প্রচুর ফল। মাঝে মাঝে মুরগির মাংস বা মাছের মতো স্বাস্থ্যকর আমিষও যোগ করেন তিনি।

স্ন্যাক্স হিসেবে প্রিয়াংকার পছন্দ হলো স্প্রাউটস সালাদ বা টার্ক স্যান্ডউইচ। রাতে সুপ, সাথে গ্রিলড চিকেন বা মাছ, হালকা সিদ্ধ সবজি খেতে পছন্দ করেন এ অভিনেত্রী। শরীরের আর্দ্র্রতা ঠিক রাখতে দৈনিক ৮-১০ গ্লাস পানি খেতে ভুল করেন না তিনি। তাৎক্ষণিক এনার্জ পেতে ও ত্বক ভালো রাখতে প্রচুর ডাবের পানিও পান করেন তিনি।

শরীরচর্চা

প্রিয়াংকা চোপড়ার শরীরচর্চার মধ্যে রয়েছে কার্ডও, ওয়েট ট্রেইনিং ও যোগ ব্যায়াম। ট্রেডমিলে প্রায় ২০ মিনিট দৌড়িয়ে শরীরচর্চা শুরু করেন তিনি। এরপর করেন পুশ আপ, ২০-২৫টি বেঞ্চ জাম্প ও ক্রাঞ্চ। এছাড়া প্রায় এক ঘন্টার যোগব্যায়াম করেন তিনি। ব্যস্ততার কারণে কোনো দিন এসব শরীরচর্চা করতে না পারলে বেশ খানিকটা দৌড়িয়ে পুষিয়ে নেন তা।