মির্জা ফখরুলদের রাজনীতি মিথ্যার ওপর প্রতিষ্ঠিত: হাছান মাহমুদ

0
20

ঢাকা , ১০ সেপ্টেম্বর, (ডেইলি টাইমস২৪):

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেবদের রাজনীতি মিথ্যার ওপর প্রতিষ্ঠিত এবং ক্রমাগত মিথ্যাচারের কারণে ‘মির্জা’ নয় ‘মিথ্যা ফখরুল’ বলছেন তাকে অনেকে।’

আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর সেগুনবাগিচা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে মিডিয়া, প্রচার ও ডকুমেন্টেশন উপকমিটির চতুর্থ সভাশেষে সংসদে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে ‘অসত্য’ বলে বিএনপি মহাসচিবের মন্তব্য নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী একথা বলেন।

ড. হাছান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে মির্জা ফখরুলের এ ধরণের মন্তব্য রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত। তার ক্রমাগত মিথ্যাচারের কারণে তাকে অনেকেই ‘মির্জা’ নয় ‘মিথ্যা ফখরুল’ বলেন। তিনি এমন মিথ্যাচার করেন যা শুনতে পেলে গোয়েবলস্ও কবরে নড়ে উঠতেন।’

‘বিএনপির রাজনীতিই মিথ্যার ওপরে প্রতিষ্ঠিত’ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘বেগম জিয়া এরশাদ সাহেবের কাছ থেকে দুটি বাড়ি ও দশ লাখ টাকা নিয়েছেন। অপ্রিয় এ সত্য সংসদে উঠে আসায় মির্জা ফখরুল এই মিথ্যাচার করেছেন, যা কোনভাবেই কাম্য নয়।’

রংপুর উপনির্বাচনে বিএনপির পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর খুনি সম্পৃক্ত ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জিয়াউর রহমান শুধু বঙ্গবন্ধুর খুনিদের আশ্রয় প্রশ্রয়ই দেননি, রক্ষার কাজও করেছেন, ইমডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে খুনিদের বিচারের পথ বন্ধ করেছেন। আর বেগম জিয়া আরো একধাপ এগিয়ে খুনি-রাজাকারদের মন্ত্রিসভায় স্থান দিয়ে তাদের গাড়িতে দেশের পতাকা তুলে দিয়েছেন। বিএনপির রাজনীতির প্রতিষ্ঠা তাই খুনের ওপরও।

এসময় বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা নিয়ে বিএনপির অভিযোগ খন্ডন করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য সুবিধা নিশ্চিত করেছে। তারপরও বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে বিএনপি যেভাবে অপরাজনীতি করছে, তাতে বেগম জিয়াকে খাটো করা হচ্ছে। বেগম জিয়ার হাঁটু ও কোমরের পুরনো ব্যাথা নিয়ে রাজনীতি বিএনপি এবং বেগম জিয়া উভয়ের জন্যই লজ্জাকর। অন্যকোন ইস্যু না পেয়ে তারা বেগম জিয়ার হাঁটু ও কোমরের পুরনো ব্যথাকেই ইস্যু করার চেষ্টা করছে।’

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন

এদিকে, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে মিডিয়া, প্রচার ও ডকুমেন্টেশন উপকমিটির সভায় মন্ত্রী বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু বিশ্বের সকল শোষিতের পক্ষে ছিলেন। তার শোষণহীন বিশ্ব গড়ে তোলার স্বপ্নকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে বাংলাদেশ ও বিশ্বের প্রধান প্রধান আটটি শহরে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজন করা হবে।’

উপকমিটির সদস্য সচিব হিসেবে তথ্য সচিব আবদুল মালেক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ, বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে নানা রকমের অনুষ্ঠান নির্মাণ, কফি টেবিল বুক-পকেট বুক ইত্যাদি প্রচার সামগ্রী তৈরির পরিকল্পনা পেশ করেন।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক, তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান, সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরীসহ সভায় উপস্থিত সদস্যরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে বঙ্গবন্ধুর প্রতি জনগণের ভালোবাসা প্রকাশে এই উদ্যোগগুলো সহায়ক হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।