সর্ষের তেল মাখলে যেসব রোগ কাছেও ঘেঁষবে না

ঢাকা , ১৩ ফেব্রুয়ারি, (ডেইলি টাইমস২৪):

এক সময়ের শিশুদের তেল মাখিয়ে রোদে রাখা হতো। সূর্যের ভিটামিন ডি শিশুদের হাড়ের জোর বাড়ায়। এ ছাড়া রোদ ত্বকেরও উপকার করে।

ত্বক বিশেষজ্ঞ সুমিত সেনের মতে, সর্ষের তেলে আস্থা রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ। তবে সর্ষের তেল খাঁটি হতে হবে। ত্বকই নয়, হৃৎপিণ্ড, পেশিসহ হাজারো সমস্যার সামাধানে সর্ষের তেলের বিকল্প নেই। আসুন জেনে নেই সর্ষের তেলে যে সব উপকার-

১. ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সর্ষের তেল ও নারকেল তেল মিশিয়ে ১০ মিনিট মাসাজ করুন। তারপর ভালো করে মুখ ধুয়ে ঘুমোতে গেলে ত্বক যেমন নরম থাকবে, তমনই উজ্জ্বল হবে।

২. ত্বকে ডার্ক স্পট, ট্যান বা পিগমেন্টেশন ঠেকাতে বেসন, দই, লেবুর রসের সঙ্গে সর্ষের তেল মিশিয়ে মুখে ১০-১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। তার পর ঠাণ্ডা পানির দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৩. সর্ষের তেলে রয়েছে ভিটামিন এ, ই এবং বি কমপ্লেক্স। ফলে এটি রিংকল কমাতে সাহায্য করে।

৪. অল্প সর্ষের তেল হাতের তালুতে ঘষে মুখে লাগিয়ে নিলে তা সূর্যের ক্ষতিকারক আলট্রাভায়োলেট রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করবে। তবে বেশি তেলে মাখিয়া যাবেন না। বেশি মাখলে ধুলোবালি ধরে রাখে ত্বক।

৫. সর্ষের তেল অ্যান্টি ব্যাকটিরিয়াল ও অ্যান্টি ফাঙ্গাল উপাদানে ভরপুর। তাই অ্যালার্জি ও র্যা শের হানা প্রতিরোধে করে।

৬. ত্বকের শুষ্কতা ও চুলকানি রুখতেও সর্ষের তেল ব্যবহার করতে পারেন। ৭. ঠাণ্ডা-কাশি ভালো করে সর্ষের তেল। ঠাণ্ডা ভালো করতে গায়ে ও বুকে মাখতে পারেন সর্ষের তেল। এ ছাড়া কালো জিরার সঙ্গে সর্ষের তেল মাখলে বেশি উপকার পাবেন।