‘নারী গণিত অলিম্পিয়াডে’ প্রথম হওয়া স্বর্ণার গল্প

ঢাকা , ১৮ মার্চ, (ডেইলি টাইমস২৪):

গণিতে পারদর্শী হতে চাইলে প্রথমে গণিতের ভয়কে জয় করে, গণিতকে ভালোবাসতে হবে। অন্য বিষয়গুলোর মতো ইতিবাচক ভাবনা নিয়ে নিয়মিত গণিত চর্চা করতে হবে। তবেই অজেয় গণিতকে ধরা সহজ হবে। এতে গণিতের একঘেয়েমি দূর হয়ে ভালো লাগা শুরু হবে বিষয়টির প্রতি। গণিত জয়ের বর্ণনা এভাবেই দিচ্ছিলেন আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত ‘নারী গণিত অলিম্পিয়াডে’ প্রথম স্থান অধিকারী স্বর্ণা সরকার।

২০টি পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ২৬০ জন স্নাতক পর্যায়ের ছাত্রীদের হারিয়ে প্রথম স্থান লাভ করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের তৃতীয় বর্ষের এই শিক্ষার্থী। দুই ভাইবোনের মধ্যে বড় স্বর্ণা বলেন, ‘ছোটোবেলা থেকেই গণিতের প্রতি ভালোবাসা ছিল প্রচণ্ড। পরীক্ষা পাশের জন্য কখনই গণিত চর্চা করিনি। নতুন কিছু শিখতে পারব—এই ভেবে গণিত করেছি। নবম শ্রেণিতেই যখন সর্বোচ্চ মার্ক তুলে গণিতে প্রথম হই, সেদিনই সিদ্ধান্ত নিই গণিত নিয়েই আমার জীবন গড়ব। অলিম্পিয়াডে যখন আমার নাম ঘোষণা করা হচ্ছিল তখন বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না যে আমি প্রথম হয়েছি। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির হাত থেকে পুরস্কার নেওয়া সত্যি ভাগ্যের ব্যাপার। গণিতের ওপর পিএইচডি করা আমার স্বপ্ন।’

 

তিনি আরো বলেন, ‘একজন নারী হিসেবে আমার সাফল্যের পেছনে মায়ের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি। বাবা-মা আমাকে কখনই মেয়ে বলে অবহেলা করেনি। লেখাপড়া ও অন্যান্য সব বিষয়ে তারা সাহায্য করেছে।’

আন্তর্জাতিক নারী দিবসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) নারী গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি এবং এ এফ মুজিবর রহমান ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে ৮ মার্চ দিনব্যাপী এই অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হয়। অলিম্পিয়াডের উদ্বোধন করেন ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নারী গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির পরিচালক অধ্যাপক চন্দ্রনাথ পোদ্দার, গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক অমল কৃষ্ণ হালদার ও ফলিত গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।