২০ মিনিটেই করোনা ধ্বংস করছে ‘রোবট’!

ঢাকা , ২৫ মার্চ, (ডেইলি টাইমস২৪): ‘দয়া করে এই ঘর থেকে বেরিয়ে যান, দরজা ও জানালাগুলো বন্ধ করুন। এখনই জীবাণুনাশকের সাহায্যে ভাইরাস ধ্বংস করা হবে।’ কথাগুলো কিন্তু কোনো মানুষের নয়, বলছিল একটি রোবট।
তবে এই রোবটটি কোনো মানুষের আদলের নয়। এটি মূলত একটি লাইট রোবট। এর থেকে বের হওয়া জীবাণুনাশক আলোকরশ্মির সাহায্যেই ধ্বংস হবে মরণব্যাধি করোনাভাইরাস। এমনটিই জানিয়েছেন, ইউভিডি রোবটসের ভাইস প্রেসিডেন্ট সাইমন এলিসন।

এরই মধ্যে ইউভিডি রোবটটি কাজ করা শুরু করেছে চীনের বিভিন্ন হাসপাতালে। এটি কীভাবে কাজ করে জানালেন সাইমন, একটি ঘর প্রথমে জনশুন্য করে তারপর দরজা জানালা বন্ধ করা হয়। ঘরের মধ্যে শুধু থাকে রোবটটি। অতঃপর রোবটের শরীর থেকে বের হয় অতিবেগুনি রশ্মি। সেই আলোর তাপেই গলে বাষ্পীভূত হয়ে যায় করোনার জীবাণু।

চীনের বিভিন্ন হাসপাতালে এর কার্যকারিতা বাড়ায় বর্তমানে বিভিন্ন দেশেও পাঠানো হচ্ছে উচ্চ আলোকশক্তিসম্পন্ন ইউভিডি রোবটটি। এ বিষয়ে ইউভিডি রোবটসের প্রধান নির্বাহী পের জিউল নিলসেন বলেন, চীনের উহানের পর শিপিংয়ের মাধ্যমে এশিয়া এবং ইউরোপের বিভিন্ন স্থানেও পৌঁছে গেছে রোবটটি। তিনি আরো বলেন, ইতালিও এরই মধ্যে ইউভিডি রোবটটি কেনার বিষয়ে আগ্রহ দেখিয়েছে। তারা সত্যিই খুব খারাপ পরিস্থিতিতে রয়েছে। অবশ্যই, আমরা তাদের সহায়তা করব।
ডেনমার্কের তৃতীয় বৃহত্তম শহর ওডেনসেই তৈরি হচ্ছে ইউভিডি রোবট। বর্তমানে একদিনেরও কম সময়ের মধ্যে রোবটগুলো তৈরি করছে ব্লু ওশান রোবোটিক্স কোম্পানিটি। এই রোবটের শক্তিশালী ইউভি আলো সহজেই করোনাভাইরাসের জীবাণুগুলোকে ধ্বংস করতে পারে। জ্বলজ্বলে আটটি বাল্বের সমন্বয়ে তৈরি এই রোবট থেকে ইউভি-সি আল্ট্রাভায়োলেট আলো নির্গত হয়।

এই আলোর সাহায্যে বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস এবং অন্যান্য ক্ষতিকারক জীবাণুগুলো ধ্বংস হয়ে যায়। এ বিষয়ে জিউল নিলসেন বলেন, এই কাজটি মানুষের পক্ষে করা খুবই বিপজ্জনক। অথচ কাজটি ১০ থেকে ২০ মিনিটের মধ্যেই সম্পন্ন করে রোবট। যখন রোবটটি ঘরের মধ্যে জীবাণুনাশক আলো জ্বালায় তখন অনেকটা পোড়া চুলের মতো গন্ধ বের হয়।

সাউদার্ন ডেনমার্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিকেল মাইক্রোবায়োলজির অধ্যাপক হান্স জার্ন কলমোস ব্যাখ্যা করেছেন, অনেক ক্ষতিকর ক্ষুদ্র জীব রয়েছে, যা সংক্রমণের জন্ম দেয়। যদি যথাসময়ে অতিবেগুনী আলোকরশ্মি প্রয়োগ করেন তবে আপনি নিশ্চিতভাবেই এসব ক্ষতিকর ভাইরাস থেকে পরিত্রান পাবেন। তিনি আরো বলেছেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রুখতে আমরা এই রোবট থেকে নির্গত আলোকরশ্মি ব্যবহার করতে পারি।

ব্লু ওশান রোবোটিক্স ও ওডেন্স বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের ছয় বছরের সাধনার ফল ইউভিডি রোবট। ২০১৯ সালের শুরুর দিকে এটি চালু করা হয়। এই রোবটের মূল্য ৬৭ হাজার মার্কিন ডলার নির্ধারিত হয়েছে। যদিও করোনভাইরাস বিরুদ্ধে ইউভিডি রোবটের কার্যকারিতা প্রমাণ করার জন্য এখনো কোনো নির্দিষ্ট পরীক্ষা করা হয়নি।

তবে নিলসন আত্মবিশ্বাসী যে এটি কাজ করে। কারণ মার্স এবং সার্সের সঙ্গে করোনাভাইরাসের অনেকটা মিল রয়েছে। তিনি জানান, এই রোগগুলোর ভাইরাস ধ্বংসেও রোবটটি কার্যকরী ভূমিকা পালন করেছে।

সূত্র: বিবিসি